কিডনি রোগের লক্ষন ও প্রতিকার সম্পর্কে ৫ টি তথ্য জানুন

 


কিডনি রোগের লক্ষন ও প্রতিকার সম্পর্কে ৫ টি তথ্য জানুন

আমাদের দেশের কিডনি ডাক্তারের ভিতর  সবচেয়ে বড় ডাক্তার হচ্ছেই ফয়জুল করিম। Dr Faizul Karim  কিডনি সম্পর্কে যেই কথা বলেছেন সবকিছু তুলে দরা হবে। আপনারা যদি মনোযোগ দিয়ে সম্পূর্ন পোস্টটি পাঠ করেন তাহলে আপনাদের কিডনি সম্পর্কে সবকিছু জানা থাকবে আপনি আপনারা পরিবারকে কিডনি রোগ থেকে বাচাতে পারবেন।

কিডনি রোগের লক্ষন ও প্রতিকার

৯০% কিডনি রোগী ১ টাই ভুল করে থাকে, তারা কিডনি নষ্ট হওয়ার পরে ডাক্তারের কাছে যায়, আর তখন ডাক্তারের কিছু করার থাকে না। আপনারা যেই লক্ষন দেখলে অবশ্যই ডাক্তারের কাছে  যাবেন তাহলে আপনাদের কিডনি নষ্ট হবে না।

কিডনি রোগের লক্ষন ও প্রতিকার

কিডনি রোগের ৫ টি লক্ষন সম্পর্কে জানুন

১. আপনি কি সব সময় ক্লান্ত  অনুভব করেন, মাজে মাজে শরীল ক্লান্ত হলে সেটা কোন সমস্যা নয়। কিডনি রোগের অন্যতম একটি লক্ষন হচ্ছে সব  সময় ক্লান্ত লাগা। আপনি যদি মনে করেন আপনার শরীল সব সময় ক্লান্ত লাগে, আর দিন দিন ক্লান্ত বারতেছে তখন আপনাকে মনে করতে হবে কিডনি রোগের লক্ষন দেখা দিয়েছে।

২. গরমের ভিতরে ঠান্ডা লাগলে বুজতে হবে আপনার কিডনি রোগের লক্ষন দেখা দিয়েছে । আপনার কিডনি রোগের লক্ষন দেখা দিলে তখন আপনার রক্ত চলাচল অনেকটা বন্ধ হয়ে যায়, আর এই কারনে গরমের ভিতরেও ঠান্ডা লাগবে।

৩. কিডনির রোগের লক্ষন চিনার আরেকটি উপায় হচ্ছে হাত, পা, শরীল ফুলে যাওয়া। আপনার যখন কিডনি সমস্যা দেখা দিবে তখন দেখবেন আপনাদের হাত ফুলে যাচ্ছে, পা ফুলে যাচ্ছে, শরীল অস্তির অস্তির লাগবে।

৪. মাজে মাজে অজ্ঞান হয়ে যাওয়া অথবা মাথা ঘুরানোর এই লক্ষনগুলো বুজায় কিডনির রোগের লক্ষন। আপনাদের যাদের মাজে মাজে মাথা ঘুরায় তাদেরকে আমি বলবো ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

৫. কিডনি রোগ হলে আপনাদের খাবারের প্রতি আগ্রহ থাকবে না। আপনার পছন্দের খাবারও  আপনার খেতে ভালো লাগবে না।

কিডনি রোগের প্রতিকার

কিডনি রোগের লক্ষন ও প্রতিকার সব মানুষের  জানাটা জরুরি আমরা কিডনি রোগের লক্ষন সম্পর্কে জানতে পেরেছি এখন কিডনি রোগের প্রতিকার সম্পর্কে জানবো।

কিডনি রোগ হলে আপনার শরীলের সাস্থ দ্রুত কমতে থাকবে আর আপনাদের শরীল অনেক খারাপ লাগবে, আপনারা ঠিক মতো কাজ কর্ম করতে পারবেন না। কিডনি রোগ হলে আপনাদের কোন কিছুই ভালো লাগবে। এই কিডনি নষ্ট হওয়ার কারনে আপনাদের মৃত্যুও হতে পারে।

আপনারা কিডনি রোগের লক্ষন ও প্রতিকার জানতে পেরেছেন আসা করি এখন আমরা কিডনি ভালো রাখার উপায় সম্পর্কে জানবো।

কিডনি রোগের লক্ষন ও প্রতিকার

কিডনি ভালো রাখার উপায়

কিডনি ভালো রাখার উপায় ভিবিন্ন দরনের রয়েছে আর সেই উপায় গুলো আপনারা জানতে পারলে অবশ্যই আপনাদের কিডনি ভালো থাকবে।

১. কিডনি ভালো রাখার জন্য আপনাদের অবশ্যই ঠিক মতো পানি পান করতেই হবে। ডাক্তার ফয়জুল করিম বলেছেন ২০% থেকে ৩০% মানুষের কিডনির সমস্যা দেখা দেয় ঠিক মতো পানি না পান করার কারনে , একটা মানুষের প্রতিদিন ৭ থেকে ৮ গ্লাস পানি পান করতে হবে কিডনি ভালো রাখার জন্য।

২. পুষ্টির অভাবেও কিডনি সমস্যা দেখা দেয় ডাক্তার ফয়জুল করিম বলেছেন। আমাদের দেশের ১২% থেকে ১৪% মানুষের পুষ্টির অভাবে কিডনির সমস্যা দেখা দেয় তাই পুষ্টি অভাব দূর করার জন্য ভালো খাবার খেতে হবে তাহলে আপমাদের কিডনি ভালো থাকবে।

৩. আমাদের বেশির ভাগ মানুষের একটি বদ অভ্যাস হচ্ছে প্রস্রাব আটকিয়ে রাখি, যার কারনে আমাদের কিডনির সমস্যা দেখা দেয় আপনারা যদি কিডনি ভালো রাখতে চান তাহলে অবশ্যই প্রাস্রাব আটকিয়ে রাখবেন না।

৪. কিডনি ভালো রাখতে হলে আপনারা বাহিরের তেল যুক্ত খাবার, পোড়া তেলের খাবার, পোড়া মুরগী, মদ, এই খাবার গুলো খাবেন না। এই খাবার গুলো আপনার কিডনি দ্রুত নষ্ট করে দিতে পারে।

আপনারা কিডনি ভালো রাখার উপায় গুলো জানতে পেরেছেন, এখন আমরা জানবো কিডনি রোগীর খাবার সম্পর্কে

আরো জানুন - মধু খেয়ে স্ত্রী কে কিভাব খুশি রাখবেন 

কিডনি রোগীর খাবার

১. টমেটো : কিডনি রোগীদের জন্য টমেটো অনেক উপকারি একটি খাবার হিসেবে দরা হয়। টমেটো খাওয়ার কারনে কিডনির সমস্যা দূর হয়ে যায়। টমেটো আপনাদের কিডনিকে আরো শক্তিশালী করে তুলতে সাহায্য করে। টমেটো আপনাদের পুষ্টির অভাব ও দূর করে।

২. আপনারা মাছ, মাংস, ডিম, গরুর দুধ এই খাবারগুলো ৪০ গ্রাম থেকে ৫০ গ্রামের মতো খাবেন। অনেকেই এই খাবার বেশি খেয়ে থাকে বেশি খেলে আপনার সমস্যা দেখা দিতে পারে।

৩. কুমড়া, ডাটা, লাউ, করলা, সিম, কফি, এই খাবারগুলো সব সময় খেতে পারেন। কিডনি রোগীর খাবার হিসেবে এই খাবার গুলো অনেক গুরুত্বপূর্ণ খাবার।

৪. কিডনি রোগীদের প্রতিদিনের খাবার   অবশ্যই শাক রাখতে হবে আপনারা যেই শাকগুলো বেশি বেশি খাবেন যেমন- পালন শাক, লাউ শাক, লাল শাক, গিমা শাক, কলই শাক  ইত্যাদি শাকগুলো প্রতিদিনের খাবারে রাখবেন।

কিডনি রোগের ঔষধ কি

আমরা এখন কিডনি রোগের ঔষধ কি সেটা জেনে নিবো, আপনারা যেই ঔষধ খাওয়ার কারনে কিডনির সমস্যা থেকে রক্ষা পাবেন।

কিডনি রোগের ঔঔষধ কি

১. কিডনি রোগীর জন্য ( calcitrol) ক্যালসিট্রাইয়োল এই  ঔষধ সবচেয়ে বেশি ব্যাবহার হয়ে থাকে। এই ঔষদ সব দেশের মানুষ খেয়ে থাকে। এই ঔষদটিতে কিডনির ক্যালসিয়াম 0.25 দিয়ে থাকে।  তাই আপনাদের বলনো ক্যালসিট্রাইয়োল ঔষদ অবশ্যই খেতে পারেন।

২. ( kidneoplant) কিডনিওপ্লান্ট  এটি একটি জার্মানির হোমিওপ্যাথী ঔষধ। এই ঔষধ ও আপনারা চাইলে খেতে পারেন এই ঔষধ ও আপনাদের জন্য অনেক উপকারি হবে।

আপনাদের অন্য ঔষদের  নাম আর বললাম না, কারন এই ২ টি ঔষদের ১ টি ঔষদ খেলেই আপনাদের কিডনি অনেকটা ভালো থাকবে, তাই আমি আপনাদের বলবো কিডনি ভালো রাখার জন্য আপনারা যেই কোন একটি ঔষদ খেতে পারেন। কিডনি রোগের ঔষদ কি সবকিছু জানতে পেরেছেন আসা করি

কিডনিতে পাথর

কিডনিতে পাথর কেনো হয় এটা নিয়ে এখনো গবেষনা চলতেছে। বর্তমান ডাক্তারেরা কিডনিতে পাথর হওয়ার কিছু কারন তুলে দরা দরেছেন। কিডনিতে যেই পাথর হয় সেই পাথর শরীলের কিছু দানার মাধ্যমে হয়ে থাকে যেমন অক্সালেড, সিস্টিন, ফসফেট,  এই গুলোর সংমিশ্রণে কিডনিতে পাথর হয়ে থাকে।

অক্সালেড  বেশির ভাগ দুগ্ধা জাতিয় খাবার থেকে হয়, সিস্টেম  বেশির ভাগ তেল যুক্ত খাবার থেকে হয়, ফসফেট বেশির ভাগ মদ থেকে হয়, আপনারা যদি এই খাবারগুলো সতর্ক ভাবে খেতে পারেন তাহলে আপনাদের কোন সমস্যাই হবে না।

অনেক সময় কিডনিতে পাথর জন্ম থেকেই হয়ে থাকে। ডাক্তারেরা বলে থাকে কিডনিতে পাথর হওয়ার নিদিষ্ট কোন কারন তারা খুজে পায় নাই।

কিডনিতে পাথর হলে আপনারা মধু খেতে পারেন, আপনারা যদি মধু অথবা লেবু খান তাহলে আপনাদের কিডনিতে পাথর এই সমস্যাটি দূর হয়ে যাবে।

কিডনি সম্পর্কে আপনারা বিস্তারিত জানুন

কিডনি হচ্ছে একটি মরন বেদি রোগ এই কিডনি রোগের কারনে মানুষের মৃত্যু হয়ে যায়। আপনাদের যদি একটি কিডনি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে আপনাদের আরেকটি কিডনি নষ্ট হতে বেশিদিন সময় লাগবে না আমি আপনাদের বলবো একটু সতর্ক হয়ে চললে কিডনি কিছু হবে না।

আপনারা কিডনি রোগের লক্ষন কি সেটাতো জানেন, তাই কিডনি সম্পূর্ন খারাপ হওয়ার আগে কিডনি রোগের লক্ষন দেখা দিবে আর কিডনি রোগের লক্ষন দেখা দিলে আপনারা যদি ডাক্তার দেখান তাহলে আপনাদের কিডনি বেশি কিছু হবে না।

সবশেষে আপনাদের বলে দেই আপনাদের কিডনি সম্পর্কে যেই ৫ টি তথ্য বললাম এই ৫ টি তথ্য আপনাদের জীবনকে পাল্টে দিবে।

আমাদের আজকের তথ্যটি ডাক্তার ফায়জুল করিম দিয়েছেন, এই তথ্য গুলো আপনার কিডনির সব দরনের সমস্যার সমাধান করবে।।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য