৫ মিনিটে পায়খানা ক্লিয়ার করার উপায়- পায়খানা

 


পায়খানা

ঘরে বসেই ৫ মিনিটে পায়খাণা ও কোয়াষ্ঠকাঠিন্য রোগ থেকে মুক্তি

আজকে জানবো  পায়খানা সম্পর্কে ৫ টি তথ্য জানতে পারবেন এবং আরো কিছু গুরুত্বপূর্ণ আয়ুর্বেদী চিকিৎসা সম্পর্কে জানতে পারবেন পায়খানার এবং কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য ।

আপনারা ঘরে বসেই ৫ মিনিটেই পায়খানা আর কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ থেকে মুক্তি পাবেন। আপনাদের কাছে একটাই অনুরুধ আপনারা সম্পূর্ন পোস্টটি পাঠ করেবেন তাহলে আপনার এবং আপনার পরিবার এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবে ,পায়খানা হওয়ার ঔষধের নাম

পায়খানা ক্লিয়ার করার উপায়

পায়খানা ক্লিয়ার করার জন্য আমরা অনেকেই ডাক্তারের কাছে যাই, কিন্তু ডাক্তারেরা বলেন আপনারা ঘরে বসেই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন খুব সহজেই। আসুন ঘরে বসে পায়খানা ক্লিয়ার এর উপায় জেনে নেই।

আপনাদের জাদের ১ দিনে ১ থেকে ২ বার পায়খানা হয় তাদের পায়খানা সাভাবিক রয়েছে কোন সমস্যা নেই। আপনাদের যাদের ১ থেকে ২ দিনে ১ বার ও পায়খানা হয় না তাদের পায়খানা সাভাবিক নয়। পায়খানা হওয়ার ঔষধের নাম

পায়খানা ক্লিয়ার করার উপায়

পায়খানা ক্লিয়ার করার ৫ টি আয়ুর্বেদী চিকিৎসা

আপনারা যেই কোন ১ টি চিকিৎসা এর মাধ্যমে আপনাদের পায়খান ক্লিয়ার করতে পারবেন। আপনারা চিকিৎসা গুলো মনোযোগ দিয়ে পাঠ করুন

১) আপনাদের যাদের পায়খানার সমস্যা হয় তারা রাতে ঘুমানোর আগে ১ গ্লাস হাল্কা গরম দুধের সাথে ইসবগুলের ভুসি নিবেন ৩ থেকে ৪ চামিচ এর মতো। আপনারা দুধের সাথে ইসবগুলের ভুসি মিক্স করার পরে ১৫ থেকে ২০ মিনিট অপেক্ষা করবেন তারপর আপনারা খেয়ে নিবেন।

আপনারা গরম দুধের সাথে ইসবগুলের ভুসি খাওয়া পরে ৫ মিনিট থেকে ১ ঘন্টার ভিতরে আপনাদের একটি ক্লিয়ার পায়খানা হবে। আর আপনাদের পায়খানার সমস্যাটি যদি জটিল হয়ে থাকে তাহলে সকালে ঘুম থেকে উঠে ক্লিয়ার পায়খানা হবে।

২/ তালমাখনা আপনারা যদি রাতে খেতে পারেন তাহলে আপনাদের পায়খানা ক্লিয়ার হবে আর পেট পরিষ্কার হয়ে যাবে। তালমাখনা আপনারা রাতে ঘুমানোর আগে খাবেন আর সকালে ঘুম থেকে উঠে ১ বার খাবেন৷ এই থেরাপিটির মাধ্যমে আপনাদের ১ থেকে ২ দিন সময় লাগবে পায়খানা ক্লিয়ার হওয়ার জন্য ।

এই তালমাখনা খাওয়ার কারনে আপনাদের পায়খানার সমস্যাই দূর হবে না এই তালমাখনা খাওয়ার কারনে আপনাদের প্রস্রাবের সমস্যা থাকলেও দূর হয়ে যাবে ডাক্তার নিলিমা আক্তার বলেছেন।

৩) নিম পাতা আপনারা যদি সঠিক নিয়মে খেতে পারেন তাহলে আপনাদের পায়খানা ক্লিয়ার হবে আর আপনাদের শরীলের রোগ প্রতিরোধ  ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। আপনারা প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ১০ থেকে ১২ গ্রাম এর মতো নিম পাতার রস খাবেন তাহলে ১০ থেকে ২০ মিনিটের ভিতরে আপনাদের পায়খানা ক্লিয়ার হবে।

আপনারা এই ৩ টি উপায়ে পায়খানা ক্লিয়ার করতে পারবেন। আপনাদের যেই আয়ুর্বেদী চিকিৎসার কথা বলাম সেই চিকিৎসা এর কারনে আপনাদের শরীলের কোন ক্ষতি হবে না আর দ্রুত উপকার পাবেন। পায়খানা হওয়ার ঔষধের নাম

পায়খানা

কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ কি

কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ কি আমরা অনেকেই জানি না। আপনাদের যাদের পায়খানা একেবারেই হয় না তাকেই কোষ্ঠ্যকাঠিন্য রোগ বলা হয়। আপনার ৩ থেকে ৪ দিন দরে পায়খানা হয় না একেই কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ বলে। কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ কি তাহলে বুজতে পারলেন।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার উপায়

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার জন্য আপনাদের প্রতিদিনের খাবারে অবশ্যই শাক-সবজি রাখতে হবে। আপনারা প্রতিদিন মাছ-মাংস খাবেন কোন সমস্যা নেই কিন্তু মাছ মাংস এর সাথে অবশ্যই আপনারা শাক- সবজি রাখার চেষ্টা করবেন।

আপনাদের যাদের কোষ্ঠকাঠিন্য এর সমস্যা মারাত্মক ভাবে হয়েছে তারা একটা আয়ুর্বেদী চিকিৎসা করতে পারেন ঘরে বসেই।

আপনারা কুসুম গরম পানি নিবেন তারপরে ৭ গ্রাম ইসবগুলের ভুসি নিবেন, ৫ গ্রাম তালমাখনা নিবেন, ১৫ গ্রাম মিঠাই নিবেন, ৫ গ্রমা কালোজিরা নিবেন তারপর কুসুম গরম পানির সাথে আপনারা সবকিছু মিক্স করে খেয়ে নিবেন তাহলে ৫ মিনিটের বিতরে আপনাদের কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ দূর হয়ে যাবে।

পায়খানা কালো হওয়ার কারন

আমাদের অনেকের পায়খানা কালো হয়ে থাকে, কিন্তু এই পায়খামা কালো হওয়ার কারনে কি আমরা অনেকেই জানি না, যার কারনে আমরা অনেকে ভয় পেয়ে যাই। আপনারা ঠিক মতো পানি না পান করার কারনে এই সমস্যাটি দেখা দিতে পারে।

আপনারা প্রতিদিন ১০ থেকে ১২ গ্লাস পানি পান করবেন তাহলে আপনাদের পায়খানা কালো হবে না। আপনারা বাহিরের খাবার বেশি খাওয়ার কারনেও আপনাদের পায়খানা কালো হতে পারে।

পায়খানা না হওয়ার কারন

পায়খানা না হওয়ার কারন অনেকেই জানি না, আজকে আপনারা জানতে পারবেন পায়খানা না হওয়ার সঠিক কিছু তথ্য।

১) বাহিরের ভিবিন্ন দরনের শুকনা খাবার খাওয়ার কারনে আপনাদের পায়খানা ক্লিয়ার হবে না। আপনারা বাহিরের শুকনা খাবার বেশি খাবন না তাহলে আপনাদের পায়খান ক্লিয়ার হবে।

২) সঠিক সময়ে খাবার না খাওয়া এবং ঠিক মতো খাবার না খাওয়া। আমরা অনেকেই ঠিক মতো খাবার খাই না,  আবার খাবার খাওয়ার নির্দিষ্ট সময় না থাকার কারনে আমাদের পায়খানা হয় না।

৩) তরল খাবার কম খাওয়ার কারনেও আমাদের পায়খানা ঠিক মতো হয় না। আপনারা যারা ঠিক মতো তরল খাবার খান না শুধু শুকনা খাবার খান তাদের ও পায়খানা হয় না।

৪) রাত জাগার কারনেও অনেক সময় ঠিক মতো পায়খানা হয় না। রাত জাগলে শরীলের পানি সল্পতা দেখা দেয় যার কারনে পায়খানা ঠিক মতো হয় না। পায়খানা হওয়ার ঔষধের নাম

কষা পায়খানা

আমাদের অনেকের কষা পায়খানা হয়ে থাকে ঠিক মতো পানি না খাওয়ার কারনে আর উল্টা পালটা খাবার খাওয়ার কারনে।

আপনাদের যাদের কষা পায়খানা হবে তারা অবশ্যই চিরতা খাবেন তাহলে আপনাদের কষা দূর হয়ে যাবে। আপনারা চিরতা ২০ থেকে ৩০ মিনিট বিজিয়ে রাখবেন তারপর খালি পেটে খেয়ে নিবেন তাহলে আপনাদের কষা দূর হয়ে যাবে।

পায়খানা হওয়ার ঔষধ

পায়খানা হওয়ার ঔষধ হচ্ছে দূরালেক্স (Duralax) . আপনারা যদি এই ঔষধ  খেতে পারেন তাহলে আপনাদের পায়খানা হবে। পায়খানা হওয়ার জন্য এই ঔষধটি অনেক ভালো।

আমাদের দেশের অনেক মানুষ এই দূরালেএক্স ঔষধ খেয়ে থাকে, আর এই ঔষধ খেয়ে অনেক মানুষ উপকার পেয়েছেন।

পায়খানা শক্ত হওয়ার কারন

পায়খানা শক্ত হওয়ার ও কিছু কারন রয়েছে আপনারা সেই কারন গুলো জানতে পারলেও আপনাদের অনেক উপকার হবে। আপনারা রুটি, বার্গার, বিস্কুট বেশি খাওয়ার কারনে আপনাদের পায়খানা সক্ত হতে পারে।

আপনারা ঠিক মতো ভাত না খেলেও আপনাদের পায়খামা শক্ত হতে পারে। আপনারা আপনাদের পায়খানা নরম করার জন্য অবশ্যই কিছু খাবার খেতে পারেন যেমন লাউ, কুমড়া, পোটল,  এই খাবার গুলা বেশি করে খেলে আপনাদের পায়খানা শক্ত হবে না।

আপনাদের পায়খানার সমস্যা দেওয়ার মূল কারন হচ্ছে আপনারা সঠিক খাবার খেতে পারেন না,, আর আপনারা ভিটামিন আর পুষ্টি যুক্ত খাবার খান না যার কারবে আপনাদের পায়খানার ভিবিন্ন দরনের সমস্যা দেখা দেয়। পায়খানা হওয়ার ঔষধের নাম

পায়খানা ও কোষ্ঠকাঠিন্য সম্পর্কে বিস্তারিত

আপনারা অনেকেই দেখা যায় পায়খানা আর কোষ্ঠ্যকাঠিন্য সমস্যায় পরে আছেন  । অনেকেই মনে করেন কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ আবার কি কিন্তু কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ আর পায়খানার সমস্যা ২ টাই এক।

আপনাদের আজকে যেই তথ্য দিয়েছি সেই তথ্য অনুযায়ি আপনাদের পায়খানার সমস্যা দেখা দিবে না জীবনেও আর আপমাদের পায়খানার সমস্যা দেখা দিলেও আপনারা ৫ মিনিট থেকে ৩০ মিনিটের ভিতরে মুক্তি পেয়ে যাবেন।

পায়খানার সব সমস্যা কিন্তু ৫ মিনিটে ঠিক হয় না, পায়খানার অনেক সমস্যা রয়েছে যেই সমস্যা গুলো থেকে আপনাদের ২ থেকে ৪ দিন পর্যন্ত লাগতে পারে।

পায়খামার সমস্যা কিন্তু মারাত্মক সমস্যা এই সমস্যা নিয়ে আপনারা অভহেলা করবেন না। আমি আপনাদের যেই তথ্য দিয়েছি সেই তথ্য এর মাধ্যমে আপনারা আপনাদের পরিবারকে ভালো ও সুস্থ রাখতে পারবেন। পায়খানা হওয়ার ঔষধের নাম

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

1 মন্তব্যসমূহ